বিদ্যাসাগরের জোড়া গোলে সেমিফাইনালে পৌঁছালো ইস্টবেঙ্গল

পড়শি ক্লাব মোহনবাগানের কলকাতা লিগের যখন জয় অধরা, তখন 2-1 গোলে জিতে ডুরান্ড কাপের সেমিফাইনাল নিশ্চিত করল ইস্টবেঙ্গল। বিপক্ষ দল ছিল বেঙ্গালুরু এফসি। যদিও রিজার্ভ দল নিয়ে ডুরান্ড কাপ খেলতে নেমেছেন নৌশাদ মুসা। প্রথম ম্যাচ জিতে একটু আত্মবিশ্বাসী ছিলেন তিনি। তবে সেই আত্মবিশ্বাসে একাই জোড়া গোল করে জল ঢালেন লাল-হলুদ শিবিরের বিদ্যাসাগর সিং।

এদিন প্রথমার্ধের শুরুটা বেঙ্গালুরু এফসির আক্রমণ দিয়েই শুরু হয়েছিল। রিজার্ভ দল হলেও ইস্টবেঙ্গলের সিনিয়র দলকে বেশ ভালই টেক্কা দিচ্ছিল মুসার ছেলেরা। খেলা যখন 18 মিনিটে গড়িয়েছে, তখন বেঙ্গালুরুর হয়ে মশাল বাহিনীকে প্রথম গোল দেন অজয় ছেত্রী। এক গোলে এগিয়ে থেকে প্রথমার্ধ শেষ করে বেঙ্গালুরু। প্রথমার্ধে গোল শোধ করতে ব্যর্থ হয় আলেহান্দ্রো ছেলেরা।

তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরু হতেই বেশ ডিফেন্সিভ দেখায় ইস্টবেঙ্গলকে। হাফ টাইমের সময় লাল-হলুদ স্প্যানিশ কোচ আলেহান্দ্রোর পেপটকে বোধ হয় কাজ হয়েছে। তাই ম্যাচের বয়স যখন 59 মিনিট, তখন বিদ্যাসাগর সিংয়ের গোলে সমতায় ফেরে ইস্টবেঙ্গল। তারপর পরবর্তী 15 মিনিট ধরে যখন কোনও দলই গোলের মুখ দেখেনি, তখন যুবভারতীর গ্যালারিতে বসে থাকা দর্শকরা ধরেই নিয়েছিল ম্যাচ ড্র হবে।

কিন্তু 74 মিনিটে সেই বিদ্যাসাগর বেঙ্গালুরুর জালে বল জড়িয়ে দলকে এগিয়ে নিয়ে যান। এই দুরন্ত গোলের আর শোধ দিতে পারেনি বেঙ্গালুরুর রিজার্ভ দল। ফলে 2-1 গোলে জিতে সেমিফাইনালের টিকিট পেয়ে গেল মশাল বাহিনী। এমনিতেই শতবর্ষের উৎসবে মজে রয়েছে লাল-হলুদ ব্রিগেড। তার ওপর ডুরান্ডে সেমির টিকিট পেয়ে আনন্দ আরও জোরালো হলে বলেই মনে করছে ফুটবলমহল।